কিছুতেই কমানো যাচ্ছে না চালের দাম

Date:

Share post:

সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে কম দামে চাল বিক্রি বা আমদানি শুল্ক কমানো; কোন কিছুতেই কমানো যাচ্ছে না চালের দাম।

নতুন করে চালের দাম না বাড়লেও, বিক্রি হচ্ছে আগের বাড়তি দামেই। একটু ভালো মানের এক কেজি চাল কিনতে গুণতে হচ্ছে কমপক্ষে ৭০ টাকা। ব্যবসায়ীরা বলছেন, আমদানির পরিমাণ আরও বাড়ানো গেলে হয়তো কমতে পারে চালের দাম।

রাজধানীর কারওয়ান বাজার। থরে থরে সাজানো নানা রকম চাল। যোগানে কোন ঘাটতি নেই। দাম এখনও আগের মতো। মিনিকেট নামে কোন ধান নেই।

তাই এই নামের কোন চাল বিক্রি করা যাবে না; সরকারের মন্ত্রীদের এমন মন্তব্যের পরও,বাজারে মিনিকেটের দাপট। দামও কম নয়। ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি।

চাল ব্যবসায়ীরা বলছেন, সরু চাল মানভেদে বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮৫ টাকা পর্যন্ত। সরু চালের মধ্যে মিনিকেট ও নাজিরশাইলের বিক্রি বেশি।

নাজিরশাইল কিনতে গুনতে হচ্ছে প্রতি কেজিতে ৮৫ টাকা। বাজারে আটাশ চালের কেজি ৬০ টাকা, গুটি স্বর্ণা ৫৫ টাকা, স্বর্ণা ৫০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটেও গেল এক সপ্তাহে কোন চালের দামই কমেনি। এ বাজারে মিনিকেট ৬৮ থেকে ৭৭ টাকা। নাজিরশাইল ৭২ থেকে ৮৭ টাকা। আর বিআর-২৮ ৫২ টাকা কেজি।

অন্যদিকে আবারও বেড়েছে মোটা চালের দাম। গত সপ্তাহের তুলনায় এই সপ্তাহে মোটা চালের দাম কেজিতে বেড়েছে এক টাকা।

গত সপ্তাহে যে মোটা চালের দাম ছিল ৪৭ টাকা কেজি, এ সপ্তাহে সেই একই চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৮ টাকা কেজি দরে।

বাজারে চালের দাম কমার কোন লক্ষণ না থাকলেও টিসিবি’র তথ্য বলছে গেলো এক সপ্তাহর ব্যবধানে সরু চালের দাম কেজিতে এক টাকা এবং মাঝারি চালের দাম দুই টাকা কমেছে।

টিসিবি বলছে, গেলো বছরের এই দিনে চালের দাম ১২ দশমিক ১০ শতাংশ কম ছিলো।